মহামারিতে এককভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না: ঢাবি উপাচার্য

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৪:৩৭ অপরাহ্ণ
মহামারিতে এককভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় না: ঢাবি উপাচার্য

মহামারিতে এককভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া জাতির জন্য হুমকি বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) একাডেমিক কাউন্সিলের সভা শেষে উপাচার্য কার্যালয় সংলগ্ন লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, যখন কোনো অতিমারি হয়, তখন এককভাবে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া জাতির জন্য হুমকি। সেটি স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ায়। মূলত ‘অতিমারির নিয়ম-কানুন’ সেটা সমর্থন করে না। এটার একটা প্রটোকল আছে। বিচ্ছিন্নভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া সেই প্রটোকল সমর্থন করে না। ১৩ মার্চ সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের হলে ওঠাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের যে আয়োজন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনা, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ভ্যাকসিনের আওতায় আনা, সেগুলো ভেবে আমরা ১৭ মে থেকে শিক্ষার্থীদের হলে ওঠানোর উদ্যোগ নিয়েছি।

ঢাবি উপাচার্য বলেন, ১৩ মার্চ সামনে রেখে যেসব বড় বড় পরীক্ষার রুটিন করা হয়েছিল, সেগুলো স্থগিত করা হলো। কারণ, সেগুলো তো শিক্ষার্থীদের হলের কার্যক্রমের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। কেন্দ্রীয়ভাবে বড় কোনো পরীক্ষা এই মুহূর্তে নেবো না। শিক্ষার্থীদের সম্মতি, সামর্থ্য ও সুরক্ষা লাগবে। এখন হল খোলার জন্য টিকা নেওয়া পূর্বশর্ত। এ বিষয়গুলো এখন একেবারেই বিভাগীয় পর্যায়ে সীমিত থাকবে।

অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল আগামী ১৭ মে খুলে দেওয়া হবে। ১৭ মে আবাসিক হল খোলার দু’সপ্তাহ পর শ্রেণি কার্যক্রম ও পরীক্ষা শুরু হবে। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আগামী ১৭ এপ্রিলের মধ্যে কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ দেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

জরুরি এই সভায় অগ্রাধিকারভিত্তিতে অনার্স শেষ বর্ষ এবং মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষা গ্রহণের জন্য আগামী ১৩ মার্চ থেকে আবাসিক পরীক্ষার্থীদের হলে রাখা বিষয়ক পূর্ব গৃহীত সিদ্ধান্ত স্থগিত করা হয়। এ উপলক্ষ্যে প্রণীত পরীক্ষার সব সূচিও স্থগিত করা হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৭ মে আবাসিক হল খোলার আগে নতুন কোনো পরীক্ষার সূচি ঘোষণা করা হবে না।

শেয়ার